1. admin@dailyteligraf.com : admin :
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:১২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
গাজীপুরে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে ট্রেনে কাটা পড়লেন লেবু বিক্রেতা গাজীপুর টঙ্গীতে নৌকার পহ্মে তরিকা পন্থী ঐক্য পরিষদের উঠান বৈঠক ই-নামজারী জমাখারিজে অনলাইনে সকল সুযোগ সুবিধা পাচ্ছেন সদর উপজেলার সাধারণ জনগণ জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষে শামীম ভাইয়ের হাত ধরে এগিয়ে যাব এডভোকেট ফজলে রাব্বি সারাদেশে বিএনপির হত্যা, নৈরাজ্য ও আগুন সন্ত্রাসের প্রতিবাদে সোনারগাঁওয়ে আ’লীগের বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা দৈনিক স্বদেশ প্রতিদিন পত্রিকার ১০ম বর্ষপুর্তি উপলক্ষে সোনারগাঁয়ে দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সোনারগাঁ পৌরসভার স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি পদপ্রার্থী সাবিকের বিশাল শোডাউন টঙ্গী পূর্ব থানা ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে সকলের দোয়া চায় -স্বপন মৃধা ডিভোর্সের জের ধরে স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর যৌতুক মামলা বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয় করণের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

বন‌বিভাগের জায়গায় অ‌ফিস ম্যানেজ করে স্কুল প্রতিষ্ঠানের নামে জবর দখল ঘর নির্মা‌ণ

  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২০ অক্টোবর, ২০২২
  • ৯৬ বার পঠিত

কক্সবাজার প্রতিনিধিঃ কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের ইসলামপুর ইউনিয়নের নাপিতখালি বিট অফিসের আওতাধীন হাজি পাড়ার বিভিন্ন এলাকায় বন‌বিভাগ‌কে ম্যা‌নেজ ক‌রে নির্বিচারে পাহাড় কাটার ধুম পড়েছে। নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রকাশ্য চলছে পাহাড় কাটা ও স্কুল প্রতিষ্ঠানের নামে সরকারি বনবিভাগের জায়গা জবর দখল ক‌রে বা‌ড়ি-ঘর নির্মা‌ণ কর‌ছে পাহাড়‌খে‌কো সি‌ন্ডি‌কেটরা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে কক্সবাজার সদরে ইসলামপুর ইউনিয়নের হাজি পাড়ার এলাকার জাফর আলমের পুত্র সাইফুল ইসলাম এর নেতৃত্বে হাজি পাড়ায় শিক্ষা প্রতিষ্টা‌নের নাম ভা‌ঙ্গি‌য়ে বসত ঘর নির্মাণ। শুধু তাই নয়, সে রেঞ্জ অফিসকে ম্যানেজ করে পার্শ্ববর্তী পাহাড় কেটে ঘর নির্মাণসহ জবর দখল কারীদেরকে সহযোগিতা করার অভিযোগও রয়েছে তার বি‌রো‌দ্ধে।

অথচ অবৈধভাবে পাহাড় কাটার শাস্তি হিসেবে দুই বছরের জেল বা ২ লাখ টাকা জরিমানা এবং দ্বিতীয়বার অপরাধ করার শাস্তি ১০ বছরের জেল বা অনধিক ১০ লাখ টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে। আইনে উভয় ক্ষেত্রে জেল ও জরিমানা দেওয়ার বিধান র‌য়ে‌ছে। কিন্তু বন আইন নী‌তিমালা তোয়াক্কা না ক‌রে বন‌বিভাগ ও পাহ‌াড় খে‌কোরা সি‌ন্ডি‌কেট ক‌রে পাহাড় কে‌টে সাবাড় কর‌তে‌ছে, তারা বন ও প‌রি‌বেশের ধ্বংসাত্বক সিদ্ধান্ত নি‌চ্ছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ এইভাবে পাহাড় কাটা ও ঘর নির্মাণ চলমান থাকলে পরিবেশ বিপর্যয় ও পাহাড় ধ্বসে সম্মুখীন হবেন তারা। পাহাড় কেটে ঘর-বাড়ি নির্মাণ, পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা। ক্ষতি হচ্ছে পরিবেশের, বিলুপ্ত হ‌চ্ছে পাহাড় ও বন্যপ্রাণী।

এ ব্যাপারে নাপিতখালী বিট অফিসার সাইফুল ইসলাম বলেন, জবর দখল ও ঘর নির্মা‌ণের বিষয়‌টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই ব্যাপারে ফুলছড়ি রেঞ্জার দিপন বাবু বলেন বিষয়টা খ‌তি‌য়ে দেখ‌তেছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১  ডেইলি টেলিগ্রাফ
Theme Customized By Theme Park BD